দৈনিক সান্তাহার

কাগজ কলমে প্ল্যাটফর্ম হলেও সান্তাহার স্টেশনে বাস্তবে মেলা না সেবা

কাগজ কলমে প্ল্যাটফর্ম হলেও সান্তাহার স্টেশনে বাস্তবে মেলা না সেবা

তরিকুল ইসলাম জেন্টু :: সান্তাহার ঐতিহ্যবাহী রেলওয়ে জংশন স্টেশনে কাগজ কলমে ৫নং প্ল্যাটফর্ম থাকলেও আজ পর্যন্ত বাস্তবে তার দেখা মিলেনি। স্টেশনের মিটার গেজ লাইনের এই প্লাটফর্মটি দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার ট্রেন যাত্রী উঠা-নামা করলেও প্ল্যাটফর্মটি সংস্কার বা উন্নয়নের ব্যাপারে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ কোন প্রকার উদ্যোগ গ্রহন করেনি। ফলে ৫নং প্ল্যাটফর্মটিতে ছাউনি, বিদ্যুৎ সরবরাহ, পানি ব্যবস্থা ও নিরাপত্তার বেষ্টনি না থাকায় ট্রেনযাত্রীদের চরম দূর্ভোগ ও ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে।

রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, সান্তাহার-লালমনিহাট এবং সান্তাহার-বোনারপাড়া লাইনে চলাচলকারী যাত্রীরা ৫নং প্লাটফর্ম ব্যবহার করে জেলা শহর বগুড়াসহ বিভিন্ন স্টেশনে যাতায়াত করে থাকে। শুধুমাত্র বগুড়া জেলা সদরে চাকরিজীবি, আইনজীবি, শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ীসহ শত শত যাত্রী সান্তাহার স্টেশন থেকে যাতায়াত করে। অথচ দীর্ঘদিন যাবত এই প্ল্যাটফর্মের সেড না থাকায় যাত্রী সাধারন রোদে পুড়ে-পানিতে ভিজে ট্রেনে উঠানামা করতে হয়। প্রখর রোদ আর বৃষ্টি শুরু হলেই যাত্রীদের ৪নং প্ল্যাটফর্মে অবস্থান করতে হয়। সময় মতো বগুড়ায় পৌঁছানোর জন্য বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার অসংখ্য ট্রেন যাত্রী ভোরের পদ্মরাগ ট্রেনে সান্তাহার স্টেশন থেকে বগুড়ায় যায়। এই স্টেশনের ৫নং প্ল্যাটফর্ম সম্পূর্ণ ব্যবহার অনুপযোগী হওয়ায় দুর্ভোগ নিয়ে চলাচল করতে হয় এসব যাত্রীদের।

সমগ্র প্ল্যাটফর্ম জুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে গরু-ছাগলসহ মানুষের মল-মূত্র। প্ল্যাটফর্মটি সংস্কার না করায় এখানকার ইট খোয়া উঠে গিয়ে মাটির সঙ্গে মিশে গেছে। এ ছাড়াও, প্ল্যাটফর্মে আলোর ব্যবস্থা থাকলেও তা অপ্রতুল। যে কারনে মেয়েরা রাতে অত্যন্ত ভয়-ভীতির মধ্য দিয়ে ট্রেনে যাতায়াত করে। অন্ধকারে কিছু দেখা না যাওয়ায় পায়ে মল-মূত্র নিয়ে যাত্রীদের বাড়ি ফিরতে হয়।

এ ছাড়াও, মিটার গেজ লাইনে হাজার হাজার যাত্রী চলাচল করলেও যাত্রীদের জন্য বসার কোন ব্যবস্থা নেই। ট্রেন যাত্রীদের দীর্ঘ সময় ট্রেনের জন্য দাঁড়িয়ে ৪নং প্ল্যাটফর্মে অপেক্ষা করতে হয়। এ ছাড়াও, ৪নং প্ল্যাফর্মের দক্ষিণ পার্শ্বে পানি নিষ্কাশনের জন্য ম্যানহলের ঢাকনাগুলো ভাঙা থাকায় ট্রেন যাত্রীরা তারাহুরো করে ট্রেনে উঠতে গিয়ে হোচট খেয়ে পড়ে যেতে দেখা যায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক রেলওয়ে কর্মচারি বলেন, রেলওয়ে একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। রেলওয়ের প্রধান কাজ যাত্রীদের শতভাগ সেবা নিশ্চিত করা। কিন্তু রেলওয়ের কর্তা ব্যক্তিদের অবহেলা এবং কিছু দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের দূর্নীতির কারণে রেলওয়ে সেবামূলক প্রতিষ্ঠান এ কথা বলতে লজ্জা পেতে হয়।

এ ব্যাপারে সান্তাহার স্টেশন মাস্টার রেজাউল করিম ডালিম জানান, ৫নং প্ল্যাটফর্মটি উঁচু করা ও ছাউনির ব্যবস্থা করার জন্য উর্ধ্বতন কর্তপক্ষকে জানালে বিষয়টি পরিদর্শন করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান।

সান্তাহার ডটকম/ইএন/১১ জুন ২০১৯ইং