সান্তাহারের বাহিরে

নওগাঁয় ৪৪ গৃহহীনকে বিনামূল্যে ঘর দিলো সরকার

সান্তাহার ডেস্ক :: নওগাঁ সদর উপজেলা এবং বদলগাছি উপজেলাতে গ্রামীন অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ (টিআর) কর্মসূচির আওতায় গৃহহীনদের মাঝে দুর্যোগ সহনীয় থাকার ঘর নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে। ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে জেলার সদর উপজেলার ২৪ জন এবং বদলগাছি উপজেলার ২০ জন অসহায় গৃহহীন মানুষকে টিআর কর্মসূচির আওতায় মোট এক কোটি ৩১ লাখ ৯৩ হাজার ৮৪০ টাকা ব্যয়ে ঘর নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে।

উপকারভোগীরা তাদের নিজ জমিতে দুর্যোগ সহনীয় ঘর পেয়ে বর্তমান সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। দীর্ঘদীন অচল থাকার ঘর এবং জমি আছে, কিন্তু বাড়ি নির্মাণ করতে পারছেন না, এমন পরিবারগুলোকে সরকার নিজ খরচে ঘর নির্মাণ করে দেয়ায় তারা অনেক উপকৃত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

জেলার বদলগাছি উপজেলার কোলা ইউনিয়নের ঝাড়ঘড়িয়া গ্রামের উপকারভোগী মিনা বেগম বলেন, চারজনের পরিবার নিয়ে তার বসবাস করতে অনেক কষ্ট সহ্য করতে হয়। বৃষ্টি, রোদ এবং শীতের সময়ে বিগত দিনের বিপর্যয়ের কবল থেকে এবার তারা রক্ষা পেয়েছেন। তার স্বামী একজন দিন মজুর। পরিবারের দৈনন্দিন খরচ যোগাতে তার অনেক কষ্ট সহ্য করতে হয় ।

ভাঙা বাড়ি মেরামত করার চিন্তা ভাবনা করেও পরিবারের অভাব অনটনের কারণে তা হয়ে ওঠেনি। সরকারি অফিসে দরখাস্ত করার পর কর্মকর্তারা বাড়ি পরিদর্শন শেষে তাদের বাড়ি নতুন করে নির্মাণ করে দিয়ে যান।

উপজেলায় ২০টি অসহায় গৃহহীন পরিবারের মাঝে বাড়ি নির্মাণ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মাদ আবু তাহির বলেন, সরকারি প্রকল্পের আওতায় উপজেলায় গৃহহীন পরিবারের মাঝে দুর্যোগ সহনীয় বাড়ি নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে। সচ্ছ পর্যবেক্ষণ এবং সঠিক তদারকিতে নির্মাণ ব্যয় নিশ্চিত করার কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। উপকারভোগীরা নতুন ঘর পেয়ে উপজেলা প্রশাসন এবং সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

এদিকে জেলার সদর উপজেলার ২৪টি অসহায় গৃহহীন পরিবারের মাঝে সরকারি বাড়ি নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সদর উপজেলার কৃত্তিপুর ইউনিয়নের আতিয়া গ্রামের আব্দুল মান্নান বলেন, তিনি হতদরিদ্র কৃষক। গ্রামের ভিটামাটিতে সাড়ে ছয় শতক জায়গাজুড়ে তার ভাঙাচুরা বাড়ি ছিল। ঝড় বৃষ্টিতে পরিবার নিয়ে সেই বাড়িতে বসবাস করতে অনেক কষ্ট সহ্য করতে হয়েছে তাদের। এসব সমস্যায় জর্জরিত হয়ে তিনি সরকারিভাবে বাড়ি নির্মাণের জন্য আবেদন করেন।

উপজেলা প্রশাসন থেকে বাড়ি পরিদর্শন করার কিছুদিন পর থেকে বাড়ি নির্মাণের কাজ শুরু হয়। এখন তারা নতুন বাড়িতে পরিবার নিয়ে উঠেছেন। হাসি ফুটেছে তার নিজের এবং পরিবারের সবার মুখে। সরকার থেকে নতুন বাড়ি পাওয়ায় প্রধানমন্ত্রী এবং তার সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন মান্নান।

সদর উপজেলা নির্মাহী কর্মকর্তা মির্জা ইমাম উদ্দিন বলেন, উপজেলায় ৭১ লাখ ৯৬ হাজার ৬৮০ টাকা ব্যয়ে সরকারিভাবে ২৪ জন অসহায় গৃহহীন পরিবারের মাঝে নতুন করে দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ কাজ সম্পন্ন করে পরিবারগুলোর বসবাসের উপযোগী করে তাদের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। সচ্ছ নির্বাচন এবং নির্মাণব্যয়ে এই প্রকল্পের কাজ সঠিক সময়ে সম্পন্ন হয়েছে।

দুই উপজেলার গৃহহীন পরিবারের মাঝে দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন প্রসঙ্গে নওগাঁ সদর উপজেলা প্রকল্প ব্যস্তবায়ন কর্মকর্তা এবং বদলগাছি উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) প্রকৌশলী মাহাবুবুর রহমান বলেন, উপকারভোগীরা উপজেলায় আবেদন করার পরিপেক্ষিতে উপজেলা প্রশাসন তাদের গৃহনির্মাণ উপযোগী কিনা তা পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে নির্বাচন করেছে। প্রকল্প হাতে পাওয়ার পর থেকে কাজ অতি দ্রুত সম্পন্ন করা হয়েছে। কাজ শেষে অসহায় পরিবারগুলোর হাতে তা সঠিক সময়ে হস্তান্তর করা হয়েছে। এতে করে ওই অসহায় পরিবারগুলো সঠিক সময়ে তাদের নতুন বাড়িতে বসবাস শুরু করতে পেরেছেন।

তিনি জানান, নওগাঁ সদর এবং বদলগাছি উপজেলার মোট ৪৪জন অসহায় পরিবারের মাঝে সরকার কর্তৃক দুর্যোগ সহনীয় বাড়ি নির্মান করে তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এই ৪৪টি পরিবারের মাঝে টিআর কর্মসূচির আওতায় গৃহহীনদের মাঝে দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ এক কোটি ৩১ লাখ ৯৩ হাজার ৮৪০ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করে তা উপকারভোগীদের মাঝে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সান্তাহার ডটকম/৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ইং/এমএম

About the author

Santahar Team

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *