সান্তাহারের বাহিরে

রাণীনগরে কৃষকদের বিনামূল্যে রোপা আমনের চারা বিতরণ

সান্তাহার ডেস্ক :: রাণীনগরে চলছে রোপা আমন ধান লাগানোর মৌসুম। আউশ ধান কাটা-মাড়াই শেষে কৃষকরা বর্তমানে আমন ধান রোপনে ব্যস্ত সময় পার করছেন। কিন্তু সম্প্রতি বয়ে যাওয়া ৩বারের বন্যায় উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে আমন ধানের বীজতলা নষ্ট হওয়ার কারণে কৃষকরা অনেকটাই চারা সংকটে পড়েছেন। কৃষকদের সময় মতো আমন ধান রোপনে সহায়তা করতে চারা সংকট থেকে উত্তোরণের লক্ষ্যে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে নির্বাচিত কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে আমন ধানের চারা বিতরন করা হয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি আমন মৌসুমে উপজেলার ১৮ হাজার ৮৫ হেক্টর জমিতে আমন ধান রোপনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই ১৭ হাজার ৯৩০ হেক্টর জমিতে আমন ধান রোপন করা হয়েছে। আর বন্যার কারণে কিছু নিচু জমিতে পানি জমে থাকলেও তা নেমে যাবার সঙ্গে সঙ্গে ধান রোপন করতে পারবে কৃষকরা।

আউশ মৌসুমে ধানের ফলন ও দাম ভালো পাওয়ার কারণে কৃষকরা কোন জমি ফেলে না রেখে উপযুক্ত সকল জমিতেই আমন ধান রোপনের সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। এতে আশা করা যাচ্ছে চলতি আমন মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে আমন ধান চাষ করা সম্ভব হবে। এ ছাড়াও বন্যা পরবর্তি সময়ে ধান রোপনে কৃষকদের করনীয় বিষয় সম্পর্কে কৃষি অফিস সার্বক্ষণিকভাবে কৃষকদের মাঠ পর্যায়ে পরামর্শ দিয়ে আসছে।

চারা বিতরণ উপলক্ষ্যে বুধবার উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপজেলার নগর ব্রীজে চারা বিতরন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। প্রান্তিক কৃষকদের সহায়তার লক্ষ্যে ২০২০-২১ অর্থ বছরে কৃষি প্রণোদনার প্রকল্পের আওতায় এই চারা বিতরন করা হচ্ছে।

কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে চারা বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ শাসছুল ওয়াদুদ।

এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মামুন, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা কৃষিবিদ সাজ্জাদ হোসেন সোহেল, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেহেদী হাসান, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান বাবু, উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা আহসান হাবিব, কৃষক ফজলুর রহমান ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিরা।

সান্তাহার ডটকম/৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ইং/এমএম

About the author

Santahar Team

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *