দৈনিক সান্তাহার

সান্তাহারে বাড়ছে বেকার চায়ের দোকানে আড্ডা

bakarসান্তাহারে তুলনামূলক বেড়েছে বেকারের সংখ্যা। পড়াশোনা শেষে চাকরি না পাওয়া, চাকরিতে যোগ না দেয়া এবং স্থানীয় পর্যায়ে কোনো কল-কারখানা কিংবা প্রতিষ্ঠান, কর্মসংস্থান না থাকায় এমন অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।
বগুড়া জেলার এক বেসরকারি জরিপ থেকে জানা যায়, সান্তাহারে শিক্ষিত যুব সমাজের শতকরা ৩৫ ভাগ বেকার। এই সমস্যায় পরিবারগুলোও দারুন হতাশায় পড়েছে।
এদিকে সংবাদের অনুসন্ধানে বেশ কয়েকজন শিক্ষিত যুবকের সঙ্গে কথা বলা হয়। তাদের একজন (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) জানান, তিনি পড়াশোনা শেষ করেছেন। চাকরির জন্য অনেক ঘোরাঘুরি করেছেন কিন্তু বর্তমানে বেকার। আর এই অবস্থায় তাকে বেশি দিন থাকতে হবে না। তার বাবা কথা বলছেন এক প্রতিষ্ঠানে। সেখানে বেশ কিছু টাকাও দিয়েছেন। এখন ডাক আসলেই তিনি সেখানে যোগ দিবেন।
আরোও একজন জানান, ঢাকাতে বেশ কিছুদিন চাকরি করেছেন তিনি কিন্তু ঢাকা তার ভাল লাগে না; তিনি চাকরি ছেড়ে দিয়ে চলে এসেছেন। এখন বাড়িতেই বসে আছেন।
এক অভিভাবকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তিনি ও তার পরিবারে বেশ অশান্তিতে আছে তার বেকার ছেলেকে নিয়ে। কারণ সান্তাহারের যে পরিবেশ তাতে সন্তান বেকার থাকলেও সমস্যা। হতাশায় পড়ে মাদকের খপ্পরে পড়লে সারা জীবনটাই শেষ।
নাম প্রকাশে সান্তাহারের এক সিনিয়র সিটিজেন বলেন, আগে এই সমস্যা ছিল না সান্তাহারে। নেশার প্রকোপ বেশি হওয়াতে এই সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। বড় বড় ভালো ভালো পজিশনে চাকরি করার পরও একবার নেশার খেয়াল মাথায় চাপলে তখন আর কিছুই ভালো লাগে না। তখন চাকরি ছেড়ে দিয়ে আসে। আর কয়দিন পর ভুল ভাঙ্গে কিন্তু চাকরি তো আর ফিরে আসে না।
এদিকে সান্তাহারে শহরে সন্ধ্যার পর বিভিন্ন চায়ের দোকান ঘুরে দেখা গেছে, দোকানগুলো যে সব তরুণ যুবকদের আনাগোনা আড্ডা তাদের বেশির ভাগই বেকার। তার সন্ধ্যার পর মাঝ রাত পর্যন্ত সেই চাযের দোকানে আড্ডা দেয়। কাজ নেই বলেই তারা এমন আড্ডার আসর জমায়। শহরে এমন খন্ড খন্ড আড্ডা চললেও স্থানীয় প্রশাসন সেগুলো দেখেও দেখে না।
সান্তাহার ডটকম/সান্তাহার ডটকম টিম/০১-০৫-২০১৬ইং

About the author

Santahar Team

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *