দৈনিক সান্তাহার

সান্তাহারে মসজিদের পাশে মদের ভাঁটি

সান্তাহার ডেস্ক :: সান্তাহার শহরের প্রাণ কেন্দ্রে একটি মসজিদের পাশেই দীর্ঘদিন ধরে রয়েছে দেশীয় বাংলা মদের ভাঁটি। এই ভাঁটির হাজারো মদখোরের মাতলামীতে অতিষ্ট মুসল্লি ও এলাকাবাসী।

জানা গেছে, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর সান্তাহার সার্কেল থেকে ওই মদের ভাঁটির অনুকুলে ৮ শতাধিক ব্যক্তিকে মদ খাওয়ার পারমিট দেয়া রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে সুইপার ও হিন্দু মিলে ৬ শত। অবশিষ্ট ২ শতাধিক মুসলমান ধর্মের।

অভিযোগ রয়েছে, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিপ্তরের কর্তা ব্যক্তিরা সঠিক ভাবে যাচাই বাছাই না করে; মদ ভাঁটির ম্যানেজারের ধরিয়ে দেয়া কাগজ দিয়েই মুসলমানদের পারমিট দিয়েছেন। মুসলমান ধর্মাম্বলিদের ক্ষেত্রে এক অর্থ বছরের জন্য পারমিট দেয়া হলেও সেটি চলে বছরের পর বছর ধরে। নবায়ন করা নিয়ে মাদক নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর ও পারমিটধারীদের মাথা ব্যাথা আছে বলে দেখে মনে হয় না।

এ ছাড়াও রয়েছে ভুয়া পারমিটের ছড়াছড়ি। পারমিটধারীর বাহিরেও দ্বিগুন সংখ্যক মদখোর সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ভীড় জমায় ভাঁটিতে। তারা খাওয়ার সাথে বিপুল পরিমান মদ কিনে নিয়ে গিয়ে বিক্রি করে গ্রামগঞ্জে। এভাবে বাংলা মদের বিক্রি বৃদ্ধি ও সরকারের রাজস্ব বাড়লেও মাদকাসক্ত হয়ে পড়ছে বিশাল জনগোষ্টি। এর মধ্যে শ্রমজীবি, যুবসমাজ এবং উঠতি বয়সের কিশোরদের সংখ্যাই বেশী।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ইংরেজ আমলে প্রতিষ্ঠিত দেশী বাংলা মদের ভাঁটি শহরবাসীর নিকট গোদের উপড় বিষফোঁড়া হয়ে দেখা দিয়েছে। সে সময় বিদেশী শ্রমিক-কর্মচারি, কুলি-মজদুর এবং বিপুল সংখ্যক সুইপারদের জন্য ওই ভাঁটি প্রতিষ্ঠিত করা হয়েছিল। এটির অবস্থান ছিল শহরের দৈনিক বাজার এলাকার যৌনপল্লীতে। আশি দশকে স্থানীয় বিক্ষুব্ধ জনতা যৌনপল্লী উচ্ছেদ করলে, মদের ভাঁটিটি স্থানান্তর হয় বর্তমান এলাকায়।

এলাকার বাইতুল মামুর মসজিদ থেকে মদের ভাঁটির দুরত্ব মাত্র একশত গজ। মসজিদের সামনের রাস্তা ও আশপাশে মদখোরদের মাতলামী ও বেপরোয়া চলাচলে মুসল্লী ও এলাকাবাসী অতিষ্ট। সচেতন মহল মদ ভাঁটিটি শহরের সুইপারপট্টিতে স্থানান্তর করার দাবি করলেও শোনার কেউ নেই ।

এ ব্যাপারে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন সার্কেলের পরিদর্শক শামসুল আলম বলেন, হিন্দু ও সুইপার বাদে অবশিষ্টগুলো বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র মোতাবেক আবেদন যাচাই করে পারমিট দেয়া হয়েছে। ভূয়া পারমিটের ছড়াছড়ির বিষয় সঠিক নয় দাবি করেন তিনি। সূত্র: জনকন্ঠ

সান্তাহার ডটকম/এমএম/২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ইং

Error type: "Forbidden". Error message: "The request cannot be completed because you have exceeded your quota." Domain: "youtube.quota". Reason: "quotaExceeded".

Did you added your own Google API key? Look at the help.

Check in YouTube if the id UCAJw84cmzl9cPVjW9ukd6Fw belongs to a channelid. Check the FAQ of the plugin or send error messages to support.