দৈনিক সান্তাহার

সান্তাহারে স্বেচ্ছাশ্রমে রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ

santahar sakoসান্তাহার ডেস্ক:: সান্তাহার ও নওগাঁর রানীনগরের পারইল ইউনিয়নের প্রায় ২০টি গ্রামের মানুষ দুই ইউনিয়ন দিয়ে যাওয়া রক্তদহ বিলের ওপর কাঠের সাঁকো ও সাঁকোর দুই পাশে রাস্তা নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। স্বেচ্ছাশ্রম ও নিজস্ব অর্থায়নে রক্তদহ বিলের সান্দিড়া-বোদলা খেয়াঘাটে রাস্তা ও কাঠের সাঁকো তৈরির কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। গত শনিবার এ কাজের উদ্বোধন করেন বগুড়া-৩ (আদমদীঘি ও দুপচাঁচিয়া) আসনের সাংসদ নুরুল ইসলাম তালুকদার।
এলাকার কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রক্তদহ বিল পাড়ের ২০টি গ্রামের মানুষ বছরের পর বছর ধরে নৌকায় ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য, শিক্ষা, চিকিৎসাসহ দৈনন্দিন জীবনের নানা চাহিদা মেটানোর জন্য জেলা সদর নওগাঁ, বগুড়া, সান্তাহারসহ দেশের অন্য শহরের সঙ্গে চলাচল করছে। তারা তাদের দুর্ভোগের কথা সাংসদ ও মন্ত্রীদের জানিয়ে কোনো ফল পায়নি। এ কারণে ওই সব গ্রামের কিছু মানুষের অর্থায়নে ও ভুক্তভোগী সাধারণ মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমে ওই ঘাটের দুই পাশে রাস্তা ও কাঠের সাঁকো নির্মাণের এ উদ্যোগ নিয়েছে। কাজে যোগদানের জন্য গতকাল সকালে সেখানে সমেবেত হয় কয়েক শ মানুষ। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয় বিলের পূর্বপাড়ে রাস্তায় মাটি কাটার কাজ।
রাস্তা ও সাঁকো নির্মাণ বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ভালো কাজেও বাধা থাকে। রাস্তা ও সাঁকো তৈরির খবর পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন সান্তাহার ইউপির চেয়ারম্যান এরশাদুল হক সরদার। বিল দখলের খোঁড়া অজুহাত দেখিয়ে তিনি ওই কাজ করতে দেবেন না বলে হুঁশিয়ারি দেন। পরে বিষয়টি আদমদীঘি উপজেলা প্রশাসনকে জানানো হলে গতকাল সেখানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়।
কাজের উদ্বোধন উপলক্ষে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জাহাঙ্গীর আলম। বিশেষ অতিথি ছিলেন আদমদীঘি উপজেলা শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক রাসেদুল ইসলাম, সান্তাহার পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাহিদুর বারি, সান্তাহার প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি গোলাম আমবিয়া।
সান্তাহার ইউপির চেয়ারম্যান এরশাদুল হক সরদার বলেন, ‘রক্তদহ বিলের ওপর কাঠের সাঁকো ও সাঁকোর দুই পাশে রাস্তা নির্মাণ অন্যায়। কিন্তু সাংসদ ও গণ্যমান্য ব্যক্তি থাকায় বাধা দিতে পারিনি।’

>> সান্তাহার ডটকম/ইএন/২৭ মার্চ ২০১৭ইং

About the author

Santahar Team

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *