দৈনিক সান্তাহার

সান্তাহার থেকে ১২ কিলোমিটার দূরেই করোনা

সান্তাহার ডেস্ক :: আদমদীঘি লকডাউন। কারণ আদমদীঘির শাওইল গ্রামে এক ব্যক্তির করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। বগুড়ার জেলার প্রথম করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি এখন আদমদীঘির শাওইলে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া শনাক্ত ব্যক্তি একজন পুলিশ কনস্টেবল। বয়স ২৯ বছর। বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মুস্তাফিজুর রহমান তুহিন বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সান্তাহারবাসীর জন্য অত্যন্ত খারাপ খবর এটি। কারণ আদমদীঘির শাওইল গ্রাম সান্তাহার থেকে মাত্র ১২.৪ কিলোমিটার দূরে। তার মানে আমরা সান্তাহারবাসী এখন করোনার খুব কাছাকাছি। এখনই আমাদের সাবধান হতে হবে। নিজেদের সুরক্ষার জন্য, পরিবারের সুরক্ষার জন্য অতিপ্রয়োজন ছাড়া আমাদের বাইরে বের হওয়া বন্ধ করতে হবে।

বৃহস্পতিবার রাতে আদমদীঘির সেই পুলিশ কনস্টেবলের নমুনার ফলাফল জানার পর পরই তাকে বগুড়ায় মোহাম্মদ আলী হাসপাতাল আইসোলেশন ইউনিটে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর পাশাপাশি আদমদীঘি উপজেলাকে লকডাউন ঘোষণারও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

আদমদীঘি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শহিদুল্লাহ্ দেওয়ান জানান, ঢাকায় কর্মরত ওই পুলিশ কনস্টেবল গত ১০ এপ্রিল গ্রামের বাড়িতে আসেন। তার তেমন কোন শারীরিক সমস্যা ছিল না। শুধু কাশি ছিল। তাই কাশির ওষুধ নেয়ার জন্য তিনি গত ১৩ এপ্রিল আদমদীঘি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসেছিলেন। তবে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে ওইদিন তার নমুনা সংগ্রহ করে পরদিন বগুড়ায় পাঠানো হয়। আর তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়।

বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মুস্তাফিজুর রহমান তুহিন জানান, আদমদীঘির ওই ব্যক্তির নমুনা ১৫ এপ্রিল রাজশাহী মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়। সেখান থেকে আজ ১৬ এপ্রিল জানানো হয় ওই ব্যক্তির করোনা পজিটিভ।

করোনায় আক্রান্ত ওই পুলিশ সদস্য জানান, তিনি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে (ডিএমপি) কর্মরত। এর আগে তিনি জামালপুরে র‌্যাবে কর্মরত ছিলেন। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি তিনি ঢাকায় ডিএমপিতে যোগ দেন। এই মুহুর্তে শারীরিক কোনো সমস্যা নেই। আমি সুস্থ আছি।

আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম আব্দুল্লাহ বিন রশিদ জানান, আক্রান্ত ব্যক্তিকে রাতেই বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আইসোলেশনে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি আদমদীঘি উপজেলাকে লকডাউন ঘোষণারও সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সান্তাহার ডটকম/১৬ এপ্রিল ২০২০ইং/ইএন

About the author

Santahar Team

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *