সান্তাহারের বাহিরে

কোরবানী পশুর হাটে মাশুল ৪শ’ টাকার বদলে ৬শ টাকা আদায়, অর্থদন্ড পেলেন ইজারাদার

 

সান্তাহার ডেস্ক :: নশরতপুর পশুর হাটে অতিরিক্ত মাশুল আদায়ের দায়ে সোমবার বিকেলে হাট ইজারাদারকে ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ বিন রশিদ এই দন্ডাদেশ দেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত-সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, কোরবানির ঈদে নশরতপুর পশু হাটে সকাল থেকেই হাট ইজারাদার পশুর অতিরিক্ত মাশুল আদায় করতে শুরু করেন। বিকেলে হাটে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালায়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার কথা শুনে ছুঁটে আসেন মিলন হোসেন নামের এক গরু ক্রেতা।

তার কাছ থেকে ২০০টাকা অতিরিক্ত আদায় করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন। অভিযোগ পাওয়ার পর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অতিরিক্ত মাশুল আদায়ের প্রমাণ পেলে হাট ইজারাদারের কাছে থেকে আদায় করা অতিরিক্ত মাশুল ক্রেতাকে ফিরিয়ে দেন। শুধু মিলন হোসেনই নয় আরো ৫/৭জন ক্রেতাদেরও অতিরিক্ত মাশুল ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ বিন রশিদ বলেন, ক্রেতার রশিদে টাকার কোনো পরিমান লেখা হয়নি। ৪শ’ টাকা নেয়ার কথা থাকলেও তারা ৬শ টাকা আদায় করছিলেন। এতে হাট ইজারাদারকে জরিমানা ও ক্রেতাদের কাছে নেয়া অতিরিক্ত টাকা ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে।

সান্তাহার ডটকম/ ২৮ জুলাই ২০২০ইং /এমএম